বুক ভরে নিঃশ্বাস নেয়া হোমো স্যাপিয়েন্স কি ভেবেছিলো ২ লক্ষ বছর পর তাঁরই বংশধর এক অপ্রস্তুত যুদ্ধে নেমে পড়বে বেঁচে থাকার জন্য, শুধুই বেঁচে থাকার জন্য!

একটি ভেন্টিলেটরের জন্য পুরো পৃথিবী হাহাকার করছে। বিশাল ব্রম্মাণ্ডের একমাত্র গ্রহ যেখানে প্রাণের স্পন্দন আছে সেখানে জীবন ও মৃত্যুর পার্থক্য তৈরী করে দিচ্ছে এই একটি যন্ত্র!

নিউইয়র্ক শহর, পৃথিবীর অন্যতম সেরা হেলথ সিস্টেম যাদের, তাঁরা হিসেব করে বের করেছে, তাঁদের খুব দ্রুত আরো ১৮০০০ ভেন্টিলেটর দরকার। প্রস্তুতকারক কোম্পানী স্রেফ জানিয়ে দিয়েছে, 'সর্বোচ্চ চেষ্টা করলেও তাঁরা এই বিশাল সংখ্যক ভেন্টিলেটর সরবরাহ করতে পারবেনা।'

ইমার্জেন্সি মেডিসিনের চিকিৎসক ডা. অক্ষয় গাঞ্জু বলছেন, 'আমি ভীত, খুব ভীত। আমরা এমন একটা সময়ের মুখোমুখি দাঁড়িয়ে আছি যেখানে খুব দ্রুতই এমন দৃশ্যের অবতারণা ঘটতে যাচ্ছে যখন একজন সন্তানের চোখের দিকে তাকিয়ে আমাকে বলতে হবে - তোমার বাবাকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য আমাদের কাছে কোনো ভেন্টিলেটর অবশিষ্ট নেই।'

ইতালি, যেখানে বয়স নির্ধারণ করে দিচ্ছে বাঁচার অধিকার সেখানে তাঁরা বলছে, ৬ কোটি মানুষের বিপরীতে তাঁদের ভেন্টিলেটর আছে ৫০০০, যা চাহিদার ২৫ ভাগও পূর্ণ করতে পারছেনা। দেশটির একমাত্র ভেন্টিলেটর প্রস্তুতকারী সংস্থা 'Siare Engineering' মাসে তৈরী করে মাত্র ১২৫টি যন্ত্র। দেশটির সরকার siare-কে বলেছে, 'উৎপাদন বাড়াও, মাসে ৫০০টি তৈরি করো।' উত্তরে siare বলেছে, 'অসম্ভব।' ভেন্টিলেটর চালানোর মানুষও তাঁদের অবশিষ্ট নেই। যে চিকিৎসক এবং নার্সরা অবসরে গিয়েছিলেন, তাঁদের ফিরিয়ে এনেও থামানো যাচ্ছেনা মৃত্যুর মিছিল। 

থামানো যাচ্ছে না মৃত্যুর মিছিল

মেডিকেল ইকুইপমেন্টের জন্য ইরান মূলত নির্ভর করতো চীনের উপর। সংকটে থাকা চীন এখন হাকছে উচ্চ মূল্য। ২০০০ নতুন ভেন্টিলেটর আমদানী করার পর আর নতুন যন্ত্র কিনতে হিমশিম খেতে হচ্ছে নতুন ১৩৫টি লাশের শেষকৃত্য দেখা এই দেশটাকে।

'উন্নত রাষ্ট্র' যুক্তরাজ্যের অবস্থা আরো ভয়াবহ। ভেন্টিলেটর ক্রাইসিস শুধু না, তাঁদের আছে অক্সিজেন ক্রাইসিসও। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বড় ঝড় আসলে কয়েক দিন নয়, বরং কয়েক ঘন্টার মধ্যেই কলাপ্স করতে পারে অক্সিজেন ডেলিভারি সিস্টেম! বরিস জনসন বসেছেন যন্ত্র কোম্পানীগুলোর সাথে। ফলাফল খুব একটা আশাব্যাঞ্জক নয়।

সংকটের কথা স্বীকার করে পাকিস্তানের এক মন্ত্রী আজ বলেছেন, 'নেই। আমাদের কাছে ওটা কেনার টাকা নেই।' ফ্রান্স, যেখানে মৃত্যুহার ১১ শতাংশ, সেখানে ৭ কোটি মানুষের বিপরীতে ভেন্টিলেটর আছে মাত্র ৫০০০। দেশটির সরকার বলছে, 'আরো লাগবে, আরো।'

কিন্তু কোথায়? কোথায় এত ভেন্টিলেটর যেটা শেষ মুহূর্তে হোমো স্যাপিয়েন্সকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য তাঁর ফুসফুসে পৌছে দেবে একটুখানি অক্সিজেন! ৩৫০ কোটি বছর পূর্বে সৃষ্টি হওয়া ১৫.৯ পারমানবিক ভরের একটি মৌলের জন্য এতটা হাহাকার কি আর কখনো তৈরী হয়েছিল? নীল গ্রহের নীল সমুদ্রের সামনে দাঁড়িয়ে বুক ভরে নিঃশ্বাস নেয়া হোমো স্যাপিয়েন্স কি ভেবেছিলো ২ লক্ষ বছর পর তাঁরই বংশধর এক অপ্রস্তুত যুদ্ধে নেমে পড়বে বেঁচে থাকার জন্য, শুধুই বেঁচে থাকার জন্য!


শেয়ারঃ


এই বিভাগের আরও লেখা