আপনার পোস্টে কমেন্ট করেছে/ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট দিয়েছে/লাইক/লাভ দিয়েছে মানে এই না যে আপনার সাথে শুতে চাইছে। ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট দিয়েছে দেখেই বিয়ের বাজার বা হানিমুনের রিসোর্ট বুকিং দেয়া বন্ধ করুন...

১। অনলাইনে আছে দেখেই অপরিচিত মানুষকে হুট করে কল দেবেন না। 

২। বয়সে ছোট হলেই বিনা পরিচয়ে তুমি ডাকা শুরু করবেন না। 

৩। কারো পেশা কী এটা শোনামাত্র ওই পেশার কোন কেষ্ট বিষ্টু আপনার বাসায় চিংড়ির চচ্চড়ি খেতে আসেন সেই গল্প শোনাবেন না। 

৪। ইনিয়ে বিনিয়ে অপরিচিত মেয়েদের বয়স জিজ্ঞাসা করবেন না (আপনার এইচএসসি কত সালে?)

৫। ধুম করে ফোন নাম্বার চাইবেন না, ফেসবুকে এ্যাড করবেন না। ইমেইল এ্যাড্রেস চাওয়া যেতে পারে, সেটাও একটা সুনির্দিষ্ট পর্যায়ের পরিচয়/কথোপকথনের পরে। 

৬। টাকলা ভাষায় মেসেজ দিবেন না, অন্ততঃ সোশাল মিডিয়াতে। মেজর টার্ন অফ। 

৭। চেনেন না জানেন না নিয়ম করে সকাল দুপুর রাত্রে অপরিচিত কাউকে কী করেন, কই আছেন এখন, খেয়েছেন, এখন কী করবেন- এইসব আজাইরা প্রশ্ন করবেন না।

৮। আপনার "ওইটার" ছবি অপরিচিত মেয়েদের পাঠাবেন না। আপনার লাইফ এতই প্যাথেটিক যে অপরিচিত মেয়েদেরকে ওই জিনিস পাঠিয়ে মনে মনে সুখ নিতে হয়- এর মানে হচ্ছে ওইটা সম্ভবত মাইক্রোস্কোপ দিয়ে দেখতে হয়। 

৯। ইনিয়ে বিনিয়ে হুট করে কেউ বিবাহিত কিনা/স্বামী কী করে এইব জানতে চাইবেন না।

১০। আপনার পোস্টে কমেন্ট করেছে/ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট দিয়েছে/লাইক/লাভ দিয়েছে মানে এই না যে আপনার সাথে শুতে চাইছে। ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট দিয়েছে দেখেই বিয়ের বাজার বা হানিমুনের রিসোর্ট বুকিং দেয়া বন্ধ করুন। 

১১। ঘনিষ্ট না হলে ঘাড়ে/গায়ে হাত দেবেন না, ধুম ধাম হাগ দেবার চেষ্টা করবেন না। 

১২। হাগ দেবার সময় ভদ্রতা বজায় রাখুন, বিশেষ করে মেয়েদের সাথে। একটা মেয়ে জন্ম থেকেই জানে কোনটা ভাল স্পর্শ আর কোনটা খারাপ। 

১৩। মেয়েদের সাথে হ্যান্ডশেক করতে গেলে হ্যান্ডশেকটাই করুন, হ্যান্ড "গ্র্যাব" না। খপ করে হাত ধরে বসে থাকবেন না। 

১৪। আপনি কোন দিকে চোখ দিচ্ছেন একটা মেয়ে খুব ভালভাবেই জানে। দৃষ্টি সংযত করুন।

১৫। যদি সন্দেহ হয় বিন্দুমাত্রও যে এটা বললে/করলে কেউ অফেন্ডেড হতে পারে- বিরত থাকুন।

১৬। অন্যের প্রফাইলে গিয়ে সেখান থেকে অপরিচিত মেয়েদের কমেন্ট দেখামাত্র ধুম করে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠাবেন না। 

১৭। প্রেমিক প্রেমিকা টুরিস্ট স্পটগুলোতে গিয়ে হাত /কাঁধ জড়িয়ে হাটতেই পারে। ড্যাব ড্যাব করে তাকিয়ে থাকবেন না। মাইন্ড ইয়োর ওউন বিজনেস।

১৮। ডিভোর্সী মেয়ে "ক্যামনে চলে" এইটা তাকে জিজ্ঞেস করবেন না। সে কার সাথে কী করে তা আপনাকে জানানোটা তার দায়িত্ব না।

১৯। কে মোটা হয়ে গেছে, কাকে ভয়ঙ্কর লাগছে এটা তাকে বলতে যাবেন না। আপনারটা খেয়ে তার ওজন বাড়ে নাই। 

২০। গুগলে জানা যায় এমন প্রশ্ন জানতে চাইবেন না। অন্যের খেয়ে দেয়ে মেলা কাজ আছে। নিজে খেটে খেতে শিখুন। 

২১। প্রথমদিকের ফ্রেন্ডশিপকে আলগা ঘনিষ্ঠ করতে হুটহাঠ কোন মেয়েকে কিসিং (😘😘) ইমোজি পাঠাবেন না। সম্পর্ক ভাল হলে পরে পাঠানো যাবে। কিন্তু এটা দিয়ে প্রথমেই আলগা পিরিত দেখাবেন না।

২২। "তোমার বফ কি করে", "আমি মেবি বিরক্ত করতেসি তোমার স্পেশাল কারো সাথে চ্যাট করতে" টাইপ কথা বলবেন না।

২৩। এখনো বিয়ে করো না কেন? বয়স চলে যাচ্ছে। কবে দাওয়াত পাবো? এসব বলা থেকে বিরত থাকুন। সে আপনারটা খাচ্ছে না। আপনার ঘাড়ে ও বসে নাই।

২৪। বাঙালি মেয়ে বিদেশে গিয়ে বিকিনি পরে ছবি দিয়েছে মানে এই না যে সে আপনার ভোগ্যপন্য। বেশি বায়ূ উঠলে হাতের কাজ করুন। 

২৫। কারও স্যালারি জিজ্ঞেস করবেন না। 

২৬। ধর্মীয় কাজ (নামাজ, রোজা, পূজা) এসব নিয়ম করে করে কিনা এগুলোও জানতে চাইবেন না। 

২৭। বিয়ের পর কে বাচ্চা নিবে,নকে নিবে না, কোন জামাই-বউ নিজেদের সাথে থাকবে নাকি থাকবে না এসব জিজ্ঞেস করবেন না বা এসবে নাক গলাবেন না। 

২৮। অন্যের ছেলে-মেয়ে কোন জায়গায় পড়ে, কেমন রেজাল্ট করে, কী কী সার্টিফিকেট আনলো এসব নিয়ে কথা বলা বন্ধ করুন। ঘনিষ্টজনদের ক্ষেত্রে অবশ্য করা যায়। 

২৯। কে বিয়ে করবে বা কে বিয়ে করবে না এসব নিয়ে সবখানে লেকচার দেয়া থেকে বিরত থাকুন। আর আড়ালে গিয়ে 'বিয়ে না করে শরীরের জ্বালা কেমনে মিটায়' জাতীয় পারভার্টেড আলাপ, আড্ডা এসব থেকে দূরে থাকুন। 

৩০। আমার খারাপ লাগছে, আমি কী করব, মন ভাল না এসব বলে জায়গায় জায়গায় মানুষজনের অ্যাটেনশন পাওয়ার চেষ্টা থামান। 

৩১। কোন ওয়ার্কশপ, সেমিনার, ফেস্ট, ট্রেনিং প্রোগ্রাম এসব জায়গাকে বিয়ে লাগানোর জায়গা, ছেলে-মেয়ে খোঁজার জায়গা বা কাউকে ধরে প্রেমে ঝুলে পড়ার জায়গা ভাবা থেকেও বিরত থাকুন, প্রফেশনাল হওয়ার চেষ্টা করুন। যে কাজে যেখানে যাচ্ছেন তার বাইরে অন্য কোন আবেগী স্রোতে ভেসে যাবার চেষ্টা বন্ধ করুন। 

পরিশেষেঃ আপনার বাবা-মা হয়ত চেষ্টা করেছিলেন ভদ্রতার শিক্ষা দিতে। কাজ হয়নি দেখে ওই কাজে আমাদের মতো মানুষজনকে হাত দিতে হল। সর্বশেষ কথা:- ভাল হোন, ভাল হতে পয়সা লাগে না।

*

প্রিয় পাঠক, চাইলে এগিয়ে চলোতে লিখতে পারেন আপনিও! লেখা পাঠান এই লিংকে ক্লিক করে- আপনিও লিখুন


শেয়ারঃ


এই বিভাগের আরও লেখা