প্লিজ, একটু ভাবুন। কোয়ারেন্টাইন কোনো উৎসবের নাম না, এটা বিপদের নাম। সতর্কতার শেষ অধ্যায়ের নাম। জ্ঞান দানের জন্য অধমকে মাফ করে দিয়েন।

এই যে ভাইয়েরা, এই যে বোনেরা, অধমের কথা একটু শুনুন। আপনারা এভাবে গণহারে "কোয়ারেন্টাইন" শব্দ ব্যবহার করছেন কেন? বাসায় বসে তাস খেলছেন ৪ জন মিলে, ছবিতে ক্যাপশন দিচ্ছেন কোয়ারেন্টাইনের ৩য় দিনে তাস খেলা। রান্না করে ১২ জনের পরিবারের সবাই দাঁত কেলিয়ে খাবারসহ গ্রুপ সেলফি তুলে বলছেন "কোয়ারেন্টাইন ভোজ"।

উঁহু, আমি জাজমেন্টাল নই। এই থমকে যাওয়া সময় উপভোগ করার জন্য আপনি তাস খেলুন, খাওয়া দাওয়া করুন এমনকি "হাজার কমেন্ট হলে এই করব" খেলা খেলুন...কোনো সমস্যা নেই। এগুলো একান্ত ব্যক্তিগত ব্যাপার, আমি এসবে কোনো সময়ই নাক গলাই না। আমার আপত্তি ও উদ্বেগ কেবল "কোয়ারেন্টাইন" শব্দটা নিয়ে। এই শব্দকে যাচ্ছেতাইভাবে জেনারেলাইজড করা হচ্ছে।

করোনা ইস্যুতে "কোয়ারেন্টাইন" শব্দটা খুব স্পেসিফিক অর্থ বহন করে। মানে আপনি যদি প্রবাসী হোন কিংবা আপনার যদি করোনা পজেটিভ কারো সাথে ডিরেক্ট কন্টাক্টের ঘটনা থাকে তবে অনুর্ধ্ব ১৪ দিন আপনাকে একেবারেই বিচ্ছিন্ন জীবন কাটাতে হবে। ধরে নেয়া হবে আপনি একজন করোনা সাস্পেক্টেড। ১৪ দিনের মধ্যে আপনার মধ্যে করোনার লক্ষণ প্রকাশ পাবার সম্ভাবনা আছে। এজন্য আপনাকে আলাদা রুমে থাকতে হবে, আলাদা জিনিসপত্র ব্যবহার করতে হবে এমনকি ব্যবহার করতে হবে আলাদা বাথরুম। কোনোভাবেই সুস্থ কারো সংস্পর্শে আপনি আসতে পারবেন না। স্ত্রী-সন্তান কেউই না।

তো, আপনারা কবে কোথায় করোনা পজেটিভ রোগীর সংস্পর্শে ছিলেন? আপনারা কি সত্যিই কোয়ারেন্টাইনের নিয়ম মানছেন? এক সাথে তাস খেলা আর খাওয়া দাওয়াকে কোয়ারেন্টাইন বলে? ঘরে আবদ্ধ থাকা মানেই কোয়ারেন্টাইন নয় গো ভাই।

বলবেন, বুঝলাম। তাই বলে এই শব্দ ব্যবহার করলে সমস্যা কী?

সমস্যা হচ্ছে লাখ লাখ মানুষ এই শব্দ ব্যবহার করে একে একেবারেই গুরুত্বহীন করে দিচ্ছেন। ইতালি প্রবাসী নিজেও আপনার মতো তাস খেলা শুরু করে দেবে ঘরে। ডাক্তাররা কোয়ারেন্টাইনে গেছে শুনলে আম জনতা ভাববে তারা মনে হয় কাজ ফেলে দিয়ে রেস্টে চলে গেছে। আরাম করে খেতে আর ঘুমাতে। আপনি বাসায় থাকা অবস্থায় জ্বর হলেও সেটা তেমন গুরুত্বপূর্ণ না। কিন্তু সত্যিকার কোয়ারেন্টাইনে থাকা কারো জ্বর হলেই ধরে নিতে হবে বিপদ আসন্ন। খবর খারাপ। শব্দটা ব্যবহার করতে একটু সচেতন হোন৷ এখন প্রতি অণু পরিমাণ ব্যাপার নিয়েও ভাবতে হবে। আমরা কোন দেশে কাদের পরিচালনায় থাকি জানেনই তো, এখন নিজেরা অসতর্ক হলে খবর আরো খারাপ হয়ে যাবে।

প্লিজ, একটু ভাবুন। কোয়ারেন্টাইন কোনো উৎসবের নাম না, এটা বিপদের নাম। সতর্কতার শেষ অধ্যায়ের নাম। জ্ঞান দানের জন্য অধমকে মাফ করে দিয়েন।

 


শেয়ারঃ


এই বিভাগের আরও লেখা